Realmi 6 price In Bangladesh

Realmi 6 price In Bangladesh – Realmi 6 বাজেটের সেরা মোবাইল ফোন

Realmi 6 price In Bangladesh – Realmi 6 বাজেটের সেরা মোবাইল ফোন

স্মার্টফোনের প্রতিযোগিতামূলক বাজারে Realme তাদের সাশ্রয়ী মুল্যে ভালো মানের স্মার্টফোন লঞ্চ করে বাজারে একটি বড় খেলোয়াড় হিসাবে আত্মপ্রকাশ করেছে। চাইনিজ ব্র্যান্ডগুলো তাদের স্মার্টফোনে যেরকম দাম রাখছে সেই দামে তারা৷ তাদের গ্রাহকদের প্রায় সব চাহিদা পুরন করার চেষ্টা করেছে। রিয়েলমি 6 তাদের মধ্যে এমন একটি মিডরেঞ্জের স্মার্টফোন যেখানে ফোন কোম্পানিটি তাদের ইউজারদের সকল চাহিদা পুরন করার চেষ্টা করেছে এটি 2020 সালের মার্চ মাসে লঞ্চ করা হয়েছিল। এটি লঞ্চ করা হয়েছে একটি গেমিং প্রসেসর, 8 গিগাবাইটের র‍্যাম, প্রসারণযোগ্য স্টোরেজ, বিগ ব্যাটারি প্যাক, দ্রুত চার্জিং সমর্থন এবং একটি কোয়াড-ক্যামেরা সেটআপ সহ। বাংলাদেশেও ফোনটি অফিসিয়ালি ভাবে লঞ্চ করা হয়েছে। বাংলাদেশে এই ফোনটি 8/128 এই একটি ভ্যারিয়েন্টে অফিসিয়ালি ভাবে পাওয়া যাচ্ছে যার দাম থাকছে 22990 টাকা।
ডিজাইন এর দিক থেকে রিয়েলমি সর্বদা তার প্রতিটি নতুন স্মার্টফোনটির সাথে আলাদা কিছু, বৈশিষ্ট্য নিয়ে আসে এবং রিয়েলমি 6 ও এর ব্যাতিক্রম কিছু নয় এই ফোনেও রয়েছে অসাধারণ কিছু ডিজাইন ও ফিচার্স। সাধারণ গ্রেডিয়েন্ট ডিজাইন থেকে বেরিয়ে রিয়েলমে তাদের নতুন স্মার্টফোনে যোগ করেছে একটি নতুন ধূমকেতুর মতো নকশা যুক্ত ডিজাইন যে হিসাবে তারা তাদের ফোনের রঙগুলির নাম নির্ধারন করেছে।ফোনটি দুইটি কালারে পাওয়া যাচ্ছে কমেট হোয়াইট এবং কমেট নীল। ধূমকেতুর ডিজাইনটি স্মার্টফোনটিকে প্রিমিয়াম অনুভুতি দেয় এবং খুব সহজেই এই ফোনটি যে কারো মনোযোগ আকর্ষণ করতে সক্ষম। তবে, আপনি যদি ভেবে থাকেন যে রিয়েলমে 6 সম্পূর্ণ নতুন ডিজাইন নিয়ে এসেছে তাহলে আপনি কিছুটা ভুল ভাবছেন। এই ফোনের সামগ্রিক ডিজাইনটি এদের পূর্ববর্তী ডিভাইস রিয়েলমে 5 সিরিজের ঝলক অন্তত পিছনের দিক থেকে। তবে,সামনের দিকে রিয়েলমে তাদের ডিভাইসে মিনি-নঞ্চটিকে পাঞ্চ-হোলের সাথে প্রতিস্থাপন করেছে, যা এই দামের মধ্যে স্মার্টফোনগুলির মধ্যে সাধারণ হয়ে উঠছে।
Realme 6, ফোনটি 191 গ্রাম ওজন এবং 8.9 mm এর পুরুত্ব হওয়ায় ফোনটি বেশ ভারী এবং মোটা মনে হবে। তবে যাইহোক ফোনটি অবশ্য ধরে রাখতে বা গ্রিপ করতে অস্বস্তিকর মনে হবে না।এবং 6.5 ইঞ্চি ডিসপ্লের ফোনটি ব্যবহার করার সময় উভয় হাত ব্যবহার করতে হতে পারে।
ফোনটির সামনে ব্যবহার করা হয়েছে কোর্নিং গরিলা গ্লাস 3 এবং ফোনটির পিছনে ব্যবহার করা হয়েছে প্লাস্টিক এবং এর মাঝের ফ্রেমটি ও প্লাস্টিকের।
ডিসপ্লের ক্ষেত্রে Realme 6 ফোনটি তাদের পুরনো ফোনগুলোর মতই। রিয়েলমি 6 ফোনটিতে রয়েছে 6.5 ইঞ্চির একটি এলসিডি আইপিএস ডিসপ্লে। যার রেজুলেশন থাকছে ফুল FHD+ (1080×2400) পিক্সেল এবং 405 ppi ডেনসিটি। এর স্ক্রিন টু বডি রেশিও 20ঃ9। ডিসপ্লের প্রোটেকশন হিসাবে থাকছে কোর্নিং গরিলা গ্লাস 3।
রিয়েলমি তাদের ডিভাইসে ডিসপ্লে কোয়ালিটির পাশাপাশি বেজেলগুলিকে পরীক্ষা করতে সক্ষম হয়েছে । এলসিডি প্যানেল হওয়া সত্ত্বেও, কালো স্তরগুলি ভাল, এটি সঠিক রঙ প্রদর্শন করে এবং এটি দেখতে ভিশন প্রাণবন্তও। সূর্যের আলোর সুগম্যতা এবং দেখার কোণগুলিও খুব ভাল এবং সরাসরি আলোর নীচে ডিসপ্লে দেখতে কোনও সমস্যা হওয়ার কথা না।
ডিসপ্লে সম্পর্কে আর একটি লক্ষণীয় ব্যাপার হল এটির 90Hz রিফ্রেশ রেট যা এই দামের ব্যাপ্তির স্মার্টফোনে একধরণের বিরল। 90Hz ডিসপ্লেটি প্রতিযোগিতায় অন্যান্য স্মার্টফোনের তুলনায় রিয়েলমে 6 এর জন্য লিভারেজ। কোনও সন্দেহ নেই যে 60Hz মোডের তুলনায় স্ক্রিনটি বেশ স্বাচ্ছন্দ্যযুক্ত এবং প্রতিক্রিয়াশীল বলে মনে হবে। তবে এই পরিবর্তন ওয়ানপ্লাস বা অন্যান্য 90Hz ডিসপ্লের স্মার্টফোনের মতো নজরে আসে না। যদিও দাম বিবেচনায়, রিয়েলমে 6 এর ডিসপ্লে এই সেগমেন্টের অন্যান্য ডিভাইসগুলোর তুলনায় বেশ স্মুথ এবং এই স্মার্টফোনে কোনও স্ক্রিন টিয়ারিং বা গ্রাফিক্স ল্যাগ ইস্যু নেই।
Realme 6 স্মার্টফোনটির নিচের দিকে রয়েছে একটি 3.5 মিমি হেডফোন জ্যাক এর পাশাপাশি রয়েছে ইউএসবি টাইপ-সি পোর্ট, স্পিকার গ্রিল, এবং প্রাইমারি মাইক্রোফোন। ফোনটির ব্যাক সাইডে রয়েছে একটি এলইডি ফ্ল্যাশলাইটের সাথে একটি অনুভূমিকভাবে সজ্জিত কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ। সিম কার্ড ট্রে এবং ভলিউম বাটন বাম দিকে রাখা হয়েছে, অন্যদিকে ডানদিকে পাওয়ার বাটন রয়েছে যা ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার হিসাবে দ্বিগুণ হয়ে গেছে। সামগ্রিকভাবে, দাম বিবেচনা করে এই স্মার্টফোনটি বেশ ভালো মানের একটি ডিজাইন প্রোভাইড করছে যা নিয়ে অভিযোগ করার কোনো সুযোগ রাখছে না কোম্পানিটি।
Realmi 6 price In Bangladesh

Realmi 6 price In Bangladesh

পারফরম্যান্সের দিক দিয়ে রিয়েলমি 6 আরও একটি বড় হাইলাইট এর কারণ এতে দেওয়া হয়েছে MediaTek Helio G90 চিপসেট যেটি মুলত একটি মিড বাজেটের গেমিং প্রসেসর । আমরা এই প্রসেসরটি গত বছর রেডমি নোট 8 প্রোতে দেখেছি। MediaTek G90 টি হ’ল একটি অক্টা-কোর প্রসেসর যা 2.0GHz এ আটকানো হয়েছে এবং এতে GPU হিসাবে থাকছে ARM Mali G76। গেমিং প্রসেসর Helio G90 টি দ্বারা ব্রাউজিং, কলিং, সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপস এবং মাল্টি-টাসিংয়ের মতো কাজ খুব সাছন্দ্যে প্রায় প্রতিদিন কাজ করে ।
স্মার্টফোনটি সামগ্রিক পারফরম্যান্সকে প্রভাবিত না করে ব্যাকগ্রাউন্ড অ্যাপগুলোকে চালাতে ও চলতে পরিচালনা করে। ইতিমধ্যে উল্লিখিত হিসাবে, যেহেতু হেলিও জি 90 টি একটি গেমিং প্রসেসর সেহেতু রিয়েল্মি 6 দিয়ে পাব্জি,কল অফ ডিউটি: মোবাইল, এসফল্ট 9 এর সাথে কিছু হালকা ওজনের গেমগুলো খেলা। এই ফেনটিতে 90hz রিফ্রেশ রেট দেওয়ার কারনে এই ফোন দিয়ে বেশ সুচারুভাবে গেইমিং করা যাবে।
রিয়েলমি অ্যান্ড্রয়েড 10 এর উপর ভিত্তি করে রিয়েলমি ইউআই সহ স্মার্টফোনটি প্রেরণ করেছে এখন, রিয়েলমে ইউআই একটি বৈশিষ্ট্য সমৃদ্ধ ইউজার-ইন্টারফেস যা গেসচার নেভিগেশন, কাস্টমাইজেশন অপশন ইত্যাদির মতো অনেকগুলি বৈশিষ্ট্য সহ আসে। Realmi UI বেশ দ্রুত কাজ করে এবং অ্যাপ খোলার সময় বা মাল্টিটাস্কিংয়ের সময় লক্ষণীয় ভাবে তেমন কোন, ল্যাগ বা স্টাটার এর মতো সমস্যা হবে না।
স্মার্টফোনটির অডিও পারফরম্যান্স অর্থাৎ ইয়ারপিস এবং নীচে -ফায়ারিং স্পিকার উভয়ই বেশ ভালো কথা বলার সময় বা গান শুনতে কোন সমস্যা হওয়ার কথা না। স্পিকারটি বেশ হাই ও স্পষ্ট এবং ক্রিস্প সাউন্ড সরবরাহ করে। সামগ্রিকভাবে, পারফরম্যান্সের বিচারে, রিয়েলমি 6 প্রতিযোগিতার তুলনায় সমান এবং ক্রেতারা মোটেই হতাশ হবেন না।
রিয়েলমে 6 একটি কোয়াড রিয়ার ক্যামেরা সেটআপ সহ সজ্জিত রয়েছে যেখানে 64 মেগাপিক্সেলের f / 1.8 এর একটি প্রাথমিক সেন্সর দেওয়া হয়েছে পাশাপাশি একটি 8 মেগাপিক্সেলের f/2.3 ওয়াইড-এঙ্গেল লেন্স যা ১১৯ ডিগ্রি তে ছবি তোলা যাবে, সাথে থাকছে একটি 2মেগাপিক্সেলের f / 2.4 ম্যাক্রো লেন্স এবং একটি 2মেগাপিক্সেলের f / 2.4 এর মনোক্রম ডেপ্থ সেন্সর অন্তর্ভুক্ত রয়েছে ।
আসুন এবার বেসিক ক্যামেরা স্পেস এবং বৈশিষ্ট্য নিয়ে একটু আলোচনা করা যাক। রিয়েলমি 6 স্মার্টফোনটিতে ক্যামেরা সেটআপটি একটি বৈশিষ্ট্য সমৃদ্ধ অ্যাপ এবং অন্যান্য রিয়েলমি স্মার্টফোনের মতো বেশ কয়েকটি শ্যুটিং মোডের সাথে আসে। শুটিং মোডে নাইটস্কেপ, এক্সপার্ট , এইচডিআর, বিউটি, আল্ট্রা-ম্যাক্রো, প্রোট্রেট মুড ইত্যাদি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে এবং হাই-রেজোলিউশনের ছবি তোলার জন্য একটি ডেডিকেটেড 64মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা মোডও রয়েছে। স্মার্টফোনটি 30fps এ 4K ভিডিওগুলি সমর্থন করে।
ছবির গুণমান সম্পর্কে কথা বলা যাক, রিয়েলমে 6 এ পিকচার কোয়ালিটি সম্পর্কে আমাদের মিশ্র অভিজ্ঞতা রয়েছে। দিনের বেলায় স্মার্টফোনের প্রাথমিক সেন্সরটি সঠিক পরিমাণে বিশদ, গতিশীল পরিসর, এবং শার্পনেস কালার সহ বেশ ভাল ছবি ক্যাপচার করতে সক্ষম হবে। তবে কম আলোতে ভালো ছবি ক্যাপচার করতে অনেকটা বেগ পেতে হবে। নাইটস্কেপ মোড দিয়ে কম আলোতে ভালো ছবি আশা করা যায়।
অন্যান্য ক্যামেরা সেন্সরগুলির বিষয়ে কথা বললে, ওয়াইড অ্যাঙ্গেল লেন্সগুলি এখানে একটি ভাল কাজ করে। মোটকথা রিয়েলমি 6 এ কোয়াড-ক্যামেরা সেটআপটি যুক্তিসঙ্গতভাবে ভাল এবং এটি একটি মিড-রেঞ্জের স্মার্টফোন হিসাবে বিবেচনা করে, আমাদের এখানে কোনও বড় অভিযোগ নেই।
রিয়েলমি সর্বদা তাদের স্মার্টফোনগুলিতে বড় ব্যাটারি যুক্ত করে বা বিদ্যুৎ খরচ হ্রাস করতে পুরো অপারেটিং সিস্টেমটিকে অনুকূল করে তোলে এবং ইউজারদের জন্য ভাল ব্যাটারি জীবন নিশ্চিত করে। এবার কোম্পানিটি রিয়েলমি 6 এর সাথে 30W এর ফাস্ট চার্জ সমর্থন সহ একটি 4300mAh এর একটি ব্যাটারি প্যাক সরবরাহ করেছে।
ব্যাটারির ব্যাকআপ হিসাবে, রিয়েলমে সাধারণ থেকে মাঝারি ব্যবহারের ক্ষেত্রে মাত্র এক দিনের চেয়ে কিছুটা বেশি সময় ধরে স্থায়ী হয়েছিল যার মধ্যে ট্রিপল-এ টাইটেল বাজানো, ব্রাউজিং করা, গান শুনা , ইউটিউবে ভিডিও দেখা, ফোন কল এবং টেক্সট করা ইত্যাদি কাজগুলো করা হয়েছে।
এবং এই 30W এর ফাস্ট চার্জার দিয়ে শুন্য থেকে 100% চার্জ হতে প্রায় 1 ঘন্টা সময় লাগবে এবং 60% চার্জ হতে 30 মিনিট এর মতো সময় নিবে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *